জগদীশ বোস ন্যাশনাল সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ | JBNSTS- Talent Scholarship, Application Process in Bengali

পশ্চিমবঙ্গ সরকার সর্বদা শিক্ষার্থীদের কল্যাণ সংস্থাকে সমর্থন করেছে এবং শিক্ষার্থীদের জন্য অনেক সরকারি স্কলারশিপ প্রদান করেছে। পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য স্কলারশিপের মধ্যে একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্কলারশিপ হল জগদীশ বোস ন্যাশনাল সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ (JBNSTS)।

জগদীশ বোস ন্যাশনাল সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ (JBNSTS) হল পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উচ্চশিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবং জৈবপ্রযুক্তি দপ্তরের অধীনে একটি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা। এই সংস্থা বিভিন্ন প্রতিভামুলক অনুসন্ধান পরীক্ষার পরিচালনা করে এবং বিজ্ঞান স্ট্রিম থেকে মেধাবী শিক্ষার্থীদের নির্বাচন করে তাদের পড়াশোনার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করে।

জগদীশ বোস ন্যাশনাল সায়েন্স ট্যালেন্ট সার্চ (JBNSTS) স্কলারশিপের নির্বাচন পদ্ধতি লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের এই স্কলারশিপ প্রদান করা হয়। উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি প্রদান করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন আকর্ষণীয় পুরস্কার দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়।

JBNSTS Talent Scholarship Details

JBNSTS Talent Scholarship in Bengali

যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়তে চায় কিন্তু আর্থিক সমস্যার কারণে বিজ্ঞানের শিক্ষা নিতে পারছে না সেই সব শিক্ষার্থীদের জন্য জগদীশ বোস ন্যাশানাল ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ (JBNSTS) একটি গুরুত্বপূর্ণ সুযোগ।

আজকের প্রতিবেদনে জগদীশ বোস ন্যাশনাল ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ আবেদনের যোগ্যতা, সুযোগ-সুবিধা, বৃত্তির পরিমাণ, আবেদন পদ্ধতি এবং প্রয়োজনীয় নথিপত্র সমস্ত বিষয় আলোচনা করা হয়েছে।

JBNSTS স্কলারশিপ একনজরে

স্কলারশিপের নামজগদীশ বোস ন্যাশনাল সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ (JBNSTS)
সুযোগ সুবিধাশিক্ষার্থীদের মাসিক বৃত্তি প্রদান করা হয়।
আবেদন পদ্ধতিঅনলাইন ও অফলাইন উভয় মাধ্যমে
নির্বাচন পদ্ধতি লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটhttps://jbnsts.ac.in/

JBNSTS স্কলারশিপ এর উদ্দেশ্য

(1) এই স্কলারশিপ এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের প্রতি আকৃষ্ট করা এবং বিজ্ঞান জগতে তাদের প্রতিভাকে উন্মোচিত করা।

(2) স্কলারশিপের মূল লক্ষ্য হলো অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা এবং শিক্ষাগত সহায়তা প্রদান করা।

JBNSTS স্কলারশিপ এর সুবিধা

(1) জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা মাসিক ১০০০ টাকা এবং এবং বই অনুদান হিসেবে বার্ষিক ২৫০০ টাকা লাভ করবে।

(2) সিনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মাসিক ৪০০০ টাকা এবং বার্ষিক ৫০০০ টাকা বই অনুদান হিসেবে প্রদান করা হয়। এছাড়া বেসিক সাইন্স স্কলাররা DST- INSPIRE স্কলারশিপের আওতায় মাসিক ৫০০০ টাকা বৃত্তি পেয়ে থাকে।

(3) সিনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রথম দশজন ছাত্র ও দশজন ছাত্রীকে ল্যাপটপ দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়।

(4) বিজ্ঞানী কন্যা মেধা বৃত্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের প্রতি মাসে ২০০০ টাকা বৃত্তি এবং বার্ষিক বই অনুদান হিসেবে ২০০০ টাকা প্রদান করা হয়।

JBNSTS স্কলারশিপ এর যোগ্যতা

  • জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষা- যে সকল শিক্ষার্থী যে কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে ৭৫ % নম্বর পেয়ে দশম শ্রেণী পাশ করে একাদশ শ্রেণিতে বিজ্ঞান নিয়ে (Physics/Chemistry/Biology/Computer Science এর থেকে যে কোনো ৩ টি বিষয় সহ) পড়বে তারা জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় বসার যোগ্য।
  • সিনিয়র বৃত্তি পরীক্ষা- যে সকল শিক্ষার্থী উচ্চমাধ্যমিক (১০+২) বিজ্ঞান শাখায় পাস করেছে এবং স্নাতক স্তরে engineering / medicine / DST-INSPIRE এর নথিভূক্ত বিষয় নিয়ে বেসিক সাইন্স (Hons.) পড়বে তারা সিনিয়র বৃত্তি পরীক্ষায় বসার যোগ্য। 
  • বিজ্ঞানী কন্যা মেধা বৃত্তি পরীক্ষা- কন্যা সন্তানদের উচ্চশিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিতে এই পরীক্ষা শুধুমাত্র ছাত্রীদের ক্ষেত্রে। যেসব ছাত্রীরা বিজ্ঞান শাখায় উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছে এবং স্নাতক স্তরে engineering / medicine / DST-INSPIRE এর নথিভূক্ত বিষয় নিয়ে বেসিক সাইন্স (Hons.) পড়বে তারাই এই মেধা বৃত্তি পরীক্ষায় বসতে পাবে।

JBNSTS স্কলারশিপ এর আবেদন পদ্ধতি

(1) শিক্ষার্থীদের প্রথমে জগদীশ বোস ন্যাশনাল সাইন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপ (JBNSTS) এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

(2) ওয়েবসাইটে গিয়ে, শিক্ষার্থীকে নিজের নাম দিয়ে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে, যার জন্য শিক্ষার্থীর নাম এবং মেইল ​​আইডি প্রয়োজন হবে।

(3) অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে শিক্ষার্থী যেকোনো সময় নিজের দেওয়া লগইন আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে স্ট্যাটাস চেক করতে পারে।

(4) হোম পেজে পরীক্ষার এবং আবেদনের অনেক লিঙ্ক খুলবে।

(5) নির্দিষ্ট JBNSTS অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে।

(6) অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম সঠিক তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে।

(7) প্রয়োজনীয় সমস্ত নথিপত্র আপলোড করতে হবে।

(8) শিক্ষার্থীর কাছে আবেদন ফি প্রদানের বিকল্প থাকবে।

(9) শিক্ষার্থীদের অনলাইনের মাধ্যমে ১০০ টাকা জমা দিতে হবে। শিক্ষার্থী যেকোনো কার্ডের মাধ্যমে নিজের ফি জমা দিতে পারে।

(10) শেষে সাবমিট অ্যাপ্লিকেশনে ক্লিক করতে হবে।

(11) অফলাইনে অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম জমা দেওয়ার জন্য, শিক্ষার্থীদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে এবং কোনো ভুল ছাড়াই অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম পূরণ করতে হবে। শিক্ষার্থীদের নিজের কিছু নথি সংযুক্ত করতে হবে এবং প্রদত্ত ঠিকানায় পাঠাতে হবে।

(12) ঠিকানা-  JBNSTS অফিস, 1300 রাজডাঙ্গা মেইন রোড, কসবা, কলকাতা 700107, পশ্চিমবঙ্গ

JBNSTS স্কলারশিপ এর আবেদনের প্রয়োজনীয় নথিপত্র

(1) শিক্ষার্থীর ছবি (JPEG ফরম্যাটে)

(2) দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির মার্কশিট।

(3) নথিভুক্ত প্রতিষ্ঠানের ভর্তি বা নিবন্ধনের রসিদ।

(4) আধার কার্ড, ভোটার কার্ড বা অন্য কোনো আইডি।

(5) আবাসিক শংসাপত্র।

(6) আয়ের শংসাপত্র।

(7) ব্যাঙ্ক পাসবই। 

(8) স্ব-ঘোষণা পত্র।

JBNSTS স্কলারশিপ এর আবেদনের শর্তাবলী

  • পশ্চিমবঙ্গের শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্রে আবেদনের তারিখ, পরীক্ষা ইত্যাদির বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়।
  • অ্যাপ্লিকেশন পোর্টালে আপলোড করা শিক্ষাগত নথিগুলির আকার ১ MB এর বেশি হওয়া উচিত নয়।
  • বৃত্তি পরীক্ষায় প্রবেশের জন্য, প্রার্থীদের ১০০টাকা আবেদন ফি দিতে হবে।
  • আপলোড করা ছবির আকার প্রস্থ ১৬০ x উচ্চতা ১৯০ পিক্সেল হওয়া উচিত।
  • আপলোড করা স্বাক্ষরের আকার প্রস্থ ১৬০ x উচ্চতা ১০০ পিক্সেল হওয়া উচিত।

JBNSTS স্কলারশিপ এর নির্বাচন পদ্ধতি

জগদীস বোস ন্যাশনাল সায়েন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপের প্রার্থী বাছাই করা হবে বৃত্তি পরীক্ষায় পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করে। পরীক্ষার পর্যায়গুলি নীচে দেওয়া হল

  • পরীক্ষার প্রথম ধাপে প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে।
  • পরীক্ষার দ্বিতীয় পর্বে সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে
  • তৃতীয় ও শেষ পর্বে শিক্ষার্থীদের কিছু বৈজ্ঞানিক সৃজনশীলতার পরীক্ষা দিতে হবে।

JBNSTS স্কলারশিপ এর পরীক্ষার ফলাফল

পরীক্ষার ফলাফল দেখতে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি প্রয়োজন-

  • জগদীস বোস ন্যাশনাল সায়েন্স ট্যালেন্ট সার্চ স্কলারশিপের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়।
  • এটি অনলাইন মোডের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।
  • পরীক্ষা পরিচালনাকারী সংস্থা ঘোষণার জন্য কোনও তারিখ প্রকাশ করে না।
  • পরীক্ষার ফলাফলে প্রার্থীদের সম্পর্কে নিম্নলিখিত তথ্য যেমন জন্ম তারিখের যোগ্যতার স্থিতি এবং সম্পর্কিত বিবরণ অন্তর্ভুক্ত থাকবে।
  • যে সকল শিক্ষার্থী পরীক্ষায় নির্বাচিত হয়েছে তাদের পরবর্তী পর্বের জন্য সাক্ষাত্কারে উপস্থিত হতে হবে।