নবান্ন বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ | Nabanna Sholarship in Bengali

প্রতিবছর শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করে তোলার জন্য এবং মেধাবী অথচ দুস্থ শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহযোগিতা করার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার বিভিন্ন স্কলারশিপের ব্যবস্থা করে দেয়। পশ্চিমবঙ্গের মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য পশ্চিমবঙ্গের একটি উল্লেখযোগ্য স্কলারশিপ হল নবান্ন স্কলারশিপ বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ।

এই স্কলারশিপ মূলত পশ্চিমবঙ্গ মুখ্যমন্ত্রী রিলিফ ফান্ডের তরফ থেকে দেওয়া হয়।

যে সমস্ত শিক্ষার্থী মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, গ্রাজুয়েশন পাস করে পরবর্তী ক্লাসে ভর্তি হয় তাদের নবান্ন বা উত্তর কণ্যা স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে।

নবান্ন স্কলারশিপ আবেদন করার জন্য একটি নির্দিষ্ট শতাংশ নম্বর পেতে হয়। যোগ্য শিক্ষার্থীদের এই স্কলারশিপে প্রতিবছর ১০,০০০ থেকে ২০,০০০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়, যা  নির্ভর করে তাদের বর্তমান কোর্সের খরচের  উপর।

দক্ষিণবঙ্গের শিক্ষার্থীদের কাছে এই স্কলারশিপের নাম নবান্ন স্কলারশিপ আবার উত্তরবঙ্গের শিক্ষার্থীদের কাছে এই স্কলারশিপের নাম উত্তর কন্যা স্কলারশিপ কিন্তু নাম দুটি আলাদা হলেও স্কলারশিপ একটাই

আজকের এই প্রতিবেদনে নবান্ন বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপের টাকার পরিমাণ, আবেদনের যোগ্যতা, আবেদন পদ্ধতি, আবেদনের শেষ তারিখ এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ সম্পূর্ণ তথ্য আলোচনা করা হয়েছে।

আপনি চাইলে নিচে থেকে এগুলি সম্পর্কে এক এক করে জেনে নিতে পারবেন।

নবান্ন বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ একনজরে

স্কলারশিপের নামনবান্ন স্কলারশিপ বা উত্তরকণ্যা স্কলারশিপ
সুবিধা  ১০,০০০ টাকা প্রদান করা হয়।
প্রদানকারী দপ্তরপশ্চিমবঙ্গ মুখ্যমন্ত্রী রিলিফ ফান্ড
আবেদন পদ্ধতিঅফলাইন
অফিশিয়াল ওয়েবসাইটwbcmo.gov.in

নবান্ন বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপের সুবিধা

নবান্ন স্কলারশিপ এর সুযোগ সুবিধা শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষার্থীদের জন্য। শিক্ষার্থীরা নবান্ন স্কলারশিপ আবেদন করলে প্রতিবছর ১০,০০০ টাকা করে পাবে। তবে শিক্ষার্থীর কোর্সের ধরন ও খরচ অনুযায়ী টাকার পরিমাণ বাড়তে পারে।

কারা এই স্কলারশিপের সুবিধা পাবে

(1) যে সমস্ত শিক্ষার্থী পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।

(2) যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের যে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠক্রমের সঙ্গে যুক্ত তারা এই স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে।

(3) যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা উপযুক্ত নম্বর পেয়ে বিগত পরীক্ষাটি উত্তীর্ণ হয়েছে তারা এই স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে।

(4) যে সমস্ত শিক্ষার্থীর পরিবারের বাৎসরিক আয় ৬০,০০০ টাকার কম তারা এই স্কলারশিপের আবেদন করতে পারবে।

কারা এই স্কলারশিপের সুবিধা পাবে না

(1) শিক্ষার্থীরা পশ্চিমবঙ্গে স্থায়ী বাসিন্দা না হলে এই স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবে না।

(2) শিক্ষার্থীরা পশ্চিমবঙ্গ ব্যতীত অন্য রাজ্যের  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হলে এই স্কলারশিপ আবেদন করতে পারবেন না।

(3) শিক্ষার্থীর পরিবারের বাৎসরিক আয় ৬০,০০০ উর্ধ্বে হলে স্কলারশিপ পাবে না।

(4) এছাড়া যে সমস্ত শিক্ষার্থী পশ্চিমবঙ্গ সরকার বা ভারত সরকারের আওতায় অন্য কোনো স্কলারশিপ ভোগ করছে তারা নবান্ন স্কলারশিপ আবেদন করতে পারবে না।

নবান্ন স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্যতা

(1) শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গে স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

(2) শিক্ষার্থীকে বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের যে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়তে হবে।

(3) শিক্ষার্থীর বিগত পরীক্ষাটি পশ্চিমবঙ্গে যে কোন ইউনিভার্সিটি কাউন্সিল বা পশ্চিমবঙ্গ বোর্ড থেকে হতে হবে।

(4) যে সমস্ত শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিকের জন্য আবেদন করবে তাদের মাধ্যমিকে ন্যূনতম ৬৫ % নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

(5) যে সমস্ত শিক্ষার্থী গ্রাজুয়েশনের জন্য এই স্কলারশিপ আবেদন করবে তাদের উচ্চমাধ্যমিকে ন্যূনতম ৬০ % নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

(6) যে সমস্ত শিক্ষার্থী পোস্ট গ্রাজুয়েশন এর জন্য এই স্কলারশিপের আবেদন করবে তাদেরকে গ্রাজুয়েশনে ৫৫ % নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

(7) শিক্ষার্থীর পরিবারের বাৎসরিক আয় ৬০,০০০ টাকার কম হতে হবে।

নবান্ন বা উত্তরকণ্যা স্কলারশিপ আবেদন পদ্ধতি

সাধারণত নবান্ন স্কলারশিপ বা উত্তরকণ্যা   স্কলারশিপে আবেদন করার জন্য অফলাইনের মাধ্যমে নবান্ন বা উত্তরকণ্যা অফিস গিয়ে সেখানে আবেদনত্র জমা দিতে হয়। কিন্তু ২০২০ সালের করোনা পরিস্থিতির পর এটি অনলাইনে ইমেলের মাধ্যমে আবেদন করা যাচ্ছে। তবে সাধারণত কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়,কি কি প্রয়োজনীয় নথিপত্র দরকার এবং আবেদন পত্রের ডাউনলোড লিংক তা নিচে উল্লেখ করা হলো।

(1) প্রথমত নিচে দেওয়া লিঙ্ক থেকে আবেদনপত্রটি ডাউনলোড করে একটি A4 সাইজের পেপারে প্রিন্ট আউট করতে হবে।

(2) আবেদনপত্রটি প্রিন্ট আউট করে সেটি সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে এবং আবেদনপত্রের নির্দিষ্ট স্থানে আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ছবি দিতে হবে।

(3) আবেদনপত্রের পাশাপাশি সেল্ফ ডিক্লারেশন বা স্ব-ঘোষণাপত্র দিতে হবে।

(4) আপনার এলাকার এম এল এ (MLA) দ্বারা Recommendation Certificate অর্থাৎ সুপারিশ ঘোষণাপত্র দিতে হবে।

(5) আবেদনপত্রের সাথে পরিবারের বার্ষিক আয়ের এর শংসাপত্র দিতে হবে।

উপরে উল্লেখিত সমস্ত নথিপত্র গুলি যে কোন গ্রুপ A অফিসার দ্বারা এটেস্টেড করাতে হবে। আবেদনপত্রের সঙ্গে এটেস্টেড করানো দ্বিপত্র সংযুক্ত করে আবেদনকারীকে নিজে অথবা অভিভাবককে  নির্দিষ্ট অফিসে গিয়ে জমা দিতে হবে।

নবান্ন বা  উত্তরকন্যা স্কলারশিপ এর জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র

(1) নবান্ন স্কলারশিপ আবেদনপত্র।

(2) শেষ পরীক্ষার মার্কশীট।

(3) বর্তমান কোর্সে ভর্তির রশিদ।

(4) Self DeclaCertificate বা স্ব-ঘোষণাপত্রের কপি।

(5) এলাকার MLA এর Recommendation Certificate বা সুপারিশ ঘোষণাপত্র।

(6) সরকারি গেজেটেড গ্রুপ A অফিসার দ্বারা বাৎসরিক আয়ের এর সার্টিফিকেট।

নবান্ন স্কলারশিপ জমা দেওয়ার ঠিকানা

দক্ষিণবঙ্গের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য

Nabanna, 14th Floor, 325 Sarat Chatterjee Road, Shibpur, Howrah- 711102

উত্তরবঙ্গের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য

UTTARKNYA, P.O.Satellite Township, Fulbari, Jalpaiguri-734015

নবান্ন স্কলারশিপ হেল্পলাইন নম্বর

প্রতিবছর বহু শিক্ষার্থী এই নবান্ন স্কলারশিপ আবেদন করে থাকেন। আবেদন করার সময় যে কোনো অসুবিধা দূর করতে দপ্তর এর তরফ থেকে একটি হেল্পলাইন নম্বর দেওয়া হয়েছে। স্কলার্শিপ এ আবেদন সংক্রান্ত যে কোনো অসুবিধার সম্মুখীন হলে এই হেল্পলাইন নম্বরে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন।

হেল্পলাইন নম্বর – (033)2214 1902   অথবা   (033)2253 5278

নবান্ন স্কলারশিপ ফর্ম ডাউনলোড

Nobanna Scholarship Application Form –

Official Website –