স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প কি | Swasthya Sathi Prakalpa Details in Bengali

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের জনগণের সুস্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্য পরিকাঠামোকে উন্নত করার জন্য স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পটি চালু করেন। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প ২০১৬ সালে ১৭ ই ফেব্রুয়ারি রাজ্যের কিছু নিম্নবিত্ত দরিদ্র সীমার নিচে মানুষের জন্য রাজ্য সরকার মন্ত্রিসভায় বিল পাস করেছিল।

তখন থেকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প বাস্তবায়ন হওয়ার, ঠিক ৪ বছর পর ২০২০ সালে ২৬ শে নভেম্বর মন্ত্রিসভার নতুন বিল পাশ করেন এবং ৩০ শে ডিসেম্বর মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। যা বাংলার মানুষ আজও এই সুবিধা পাচ্ছে এবং রাজ্য সরকার স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও সুস্থ সমাজে বসবাস করছে।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প কি? (What is Swasthya Sathi Prakalpa in Bengali)

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প হল আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া বাংলায় সমস্ত দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী জনসাধারণকে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক ও জটিল রোগের বিনামূল্যে সুচিকিৎসা করানো হবে। বাংলা সমস্ত জনসাধারণ স্বাস্থ্য বীমার মধ্যে আসবে। এই বিমা থেকে পরিবারের যে কোন সদস্য দেড় লক্ষ থেকে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে সুচিকিৎসা করাতে পারবেন। এককথায় রাজ্যের শিশু থেকে বয়স্ক সমস্ত বয়সের লোকেরা পশ্চিমবঙ্গে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা পাচ্ছে।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প এক নজরে

প্রকল্পের নামস্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
সাল২০১৬ আংশিক, ২০২০ বাংলার সমস্ত জনসাধারন
উদ্যোক্তামমতা ব্যানার্জি
দপ্তরস্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়
সুবিধা১.৫ লাখ থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা
E-mailSwasthyasathi.gov.in

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের উদ্দেশ্যে

  • আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া পরিবার বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবে।
  • জটিল রোগের চিকিৎসা রাজ্যে উন্নত হাসপাতাল থেকে বিনা মুল্যে চিকিৎসা হবে।
  • রাজ্যে সুস্থ হয়ে মানুষ বসবাস করতে পারবে।
  • রাজ্যের চিকিৎসা ব্যবস্থার পরিকাঠামো মজবুত করা।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা

  1. পশ্চিমবাংলার সমস্ত জনসাধারণ বিনা পয়সায় সুচিকিৎসা পাবে।
  2. রোগীকে ভর্তি দিন থেকে ছুটি পর্যন্ত এমনকি রোগীর আগামী পাঁচ দিনের সমস্ত ঔষধ ও যাতায়াত ভাড়া সরকার বহন করবে।
  3. দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী পরিবারগুলো উন্নতমানের সুচিকিৎসা পাচ্ছে।
  4. স্বাস্থ্য সাথী কার্ডে বাংলার সমস্ত জনসাধারণ প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ১.৫ লক্ষ টাকা এবং জটিল রোগের জন্য ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সুবিধা হবে।
  5. স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের ফলে রাজ্যের প্রতিটি মানুষ একটি বিমার আওতায় এসেছে।
  6. অসুস্থ্য রোগীকে চিকিৎসা কেন্দ্রে ভর্তির ২৪ ঘন্টার মধ্যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা করতে হবে।
  7. রোগী ভর্তির পর রোগীর খাবারের ব্যবস্থা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ করবে।
  8. রাজ্যর বাইরে ২০০০ এর বেশি চিকিৎসা কেন্দ্র আছে যেখানে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর মাধ্যমে চিকিৎসা হবে।
  9. রোগীদের জন্য সরকারি হাসপাতালে ৫০০ টাকা এবং বেসরকারি হাসপাতালে দুশো টাকা রোগীর পরিবারকে দিবে।

কারা কারা স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা পাবে?

  1. পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  2. একই পরিবারের স্বামী স্ত্রীর মা-বাবা আঠারো বছর বয়স পর্যন্ত প্রত্যেক ছেলে মেয়ে এই সুবিধা পাবেন।
  3. রাজ্যের বেসরকারি সংস্থায় চাকরী করলেও এই সুবিধা হবে।
  4. আংশিক শিক্ষক, শ্রমিক, গ্রুপ ডি স্তরের কর্মীরা এই সুবিধা পাবেন।
  5. স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সুবিধার জন্য বিশেষ কোনো বীমা শর্ত নেই।

কারা কারা স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা পাবেন না

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প সুবিধা পাবেন না যারা এ রাজ্যের বাসিন্দা নয় তারা এই প্রকল্প থেকে বঞ্চিত হবেন। এছাড়া রাজ্যের যে সমস্ত সরকারি কর্মচারী যাদের সরকারের তরফ থেকে মেডিকেল অ্যালাউন্স পেয়ে থাকেন তারা স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা পাবেন না। যেমন -WBHS, CGHS, ESI ইত্যাদি কর্মচারীরা স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হবেন।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  • আবেদনকারীর আধার কার্ড, মোবাইল নাম্বার, বায়োমেট্রিক ফর্ম পূরণ করতে হবে।
  • খাদ্যসাথী কার্ড

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আবেদন

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নতুন করার জন্য আপনি অনলাইন এবং অফলাইনে করতে পারবেন। উপযুক্ত হার্ড কপিটি আপনার ব্লকে স্বাস্থ্য সাথী ভবনে জমা করবেন সঙ্গে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিতে হবে। এছাড়া দুয়ারের সরকার এবং পাড়ায় পাড়ায় ক্যাম্পে জমা করতে পারবেন।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের অভিযোগ নথিভুক্ত করন

রোগের চিকিৎসা চলাকালীন রোগের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার রোগীর পরিবারের সঙ্গে এবং উপযুক্ত রোগীকে হাসপাতাল, নার্সিংহোম সরকারি বেসরকারি যেকোনো প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিতে অস্বীকার করলে আপনি জেলা সদর দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করবেন।

এছাড়া পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য সাথী ওয়েবসাইটে গিয়ে https://swasthyasathi.gov.in আপনি অভিযোগ দিতে পারেন। সরকারের টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০-৩৪৫-৫৩৮৪ –এই নম্বর কল করে আপনার অভিযোগ জানালে আপনি খুব দ্রুত আপনার সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প: Official Website

👉 সরকারি প্রকল্প, সরকারি সুবিধার নতুন নতুন তথ্য মিস না করতে চাইলে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে Join হয়ে থাকুন।